গণধর্ষণ থেকে বাঁচতে বহুতল স্কুলের ছাদ থেকে ঝাঁপ নাবালিকার, অবস্থা আশঙ্কানজক

0
38

ওড়িশা: মর্মান্তিক এক ঘটনা ঘটেছে ওড়িশায়। পাঁচজন পুরুষের দ্বারা গণধর্ষণের চেষ্টা থেকে বাঁচতে বহুতল স্কুলের ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়েছে একটি নাবালিকা। ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে গুরুতর জখম হয়েছে বলেই জানিয়েছে পুলিশ। নাবালিকার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলেই উল্লেখ করা হয়েছে। ঘটনা সামনে আসার পরেই একালায় ছড়িয়েছে তীব্র চাঞ্চল্য।

ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার রাতে ওড়িশার জাজপুর জেলায়। ওড়িশার কেওনঝার জেলার বাসিন্দা নাবালিকা তাঁর ভাইয়ের সঙ্গে তাঁর দিদির বাড়িতে যাচ্ছিল। পুলিশ জানিয়েছে তারা বাস থেকে নামার পর এলাকায় প্রবল বৃষ্টি হচ্ছিল এবং একদল লোক পরামর্শ দিয়েছিল যে তারা স্কুল বিল্ডিংয়ে থাকতে পারে এবং বৃষ্টি থামলে তাদের গন্তব্যে যেতে পারে। উপায় না দেখে মেয়েটি ও তাঁর ভাই এই প্রস্তাবে রাজি হয়। সেই সুযোগই নেয় পাঁচ ব্যক্তি। ধর্ষণের হাত থেকে বাঁচতে কোনও উপায় না পেয়ে নাবালিকা স্কুলের ছাদ থেকে ঝাঁপ দেয় বলেই জানিয়েছে পুলিশ। একজন সিনিয়র অফিসার জানিয়েছেন নাবালিকাকে গুরুতর অবস্থায় কলিঙ্গ নগরের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পাঁচ অভিযুক্তকেই আটক করা হয়েছে।

- Advertisement -

আরও পড়ুনঃ বানচাল হামলার ছক, কাশ্মীরে গ্রেফতার শীর্ষ লস্কর কমান্ডার সহ চার সন্ত্রাসবাদী

অভিযোগে জানানো হয়েছে ওই পাঁচজন পরে নাবালিকার ভাইকে মারধর করে এবং তাঁকে ঘটনাস্থল থেকে তাড়িয়ে দেয়। তারপরেই পাঁচজন মিলে নাবালিকাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। প্রাণ বাঁচাতে সে স্কুলের ছাদে দৌড়ে যায় এবং সেখান থেকে লাফ দিয়ে গুরুতর আহত হয়। সাহায্যের জন্য তাঁর ভাইয়ের চিৎকার শুনে স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ কর্মীরা গ্রামে পৌঁছে মেয়েটিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। কলিঙ্গ নগর থানার ইনচার্জ পরিদর্শক পিবি রাউত বলেন, “নির্যাতিতার ভাইয়ের বক্তব্যের ভিত্তিতে পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।”