পুলিশি নিস্ক্রিয়তার জন্যই ভাটপাড়া দুষ্কৃতী-মুক্ত হতে পারছে না, অভিযোগ বাসিন্দাদের

0
11
murder

ভাটপাড়া: প্রকাশ্য দিবালোকে ফের এলাকায় রক্ত ঝরার ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে ক্ষুব্ধ ছিলেন বাসিন্দারা৷ ঘটনার প্রায় দু’ঘণ্টা পর শীর্ষ পুলিশ কর্তারা ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছালে তাদেরকে উদ্দেশ্যে করেও সেই বিষয়ে কটুক্তি ছুঁড়ে দিতে দেখা গেল বাসিন্দাদের৷ বললেন, ‘‘এমন পুলিশ থেকে লাভ কি? যারা ঘটনা ঘটার পর আসে, কিন্তু অপরাধীদের শায়েস্তা করতে পারে না!’’ কেউ কেউ আরও একধাপ এগিয়ে দাবি করেছেন, ‘‘পুলিশি নিস্ক্রিয়তার জন্যই ভাটপাড়া দুষ্কৃতী-মুক্ত হতে পারছে না!’’ যদিও এই বিষয়ে পুলিশের কর্তারা কেউই কোনও প্রতিক্রিয়া দিতে রাজি হননি৷

এদিন সকাল সাড়ে ১০ টা নাগাদ চা দোকানে বসে সিগারেট খাওয়ার সময় দুষ্কৃতীদের ছোঁড়া এলোপাথারি গুলিতে হত হয়েছেন মহম্মদ সালাউদ্দিন আনসারি ওরফে মুকুল (২৭)। খুনের অভিযোগ উঠেছে পঙ্কজ নামে স্থানীয় এক যুবকের বিরুদ্ধে৷ ঘটনার জেরে এলাকার পরিস্থিতি ক্রমেই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে৷ মুকুলের ঘনিষ্ট হিসেবে পরিচিত মহম্মদ জাভেদ, মহম্মদ আমিরেরা বলেন, ‘‘যারা খুন করল ওরা দুষ্কৃতী৷ এখানে যে দুষ্কৃতীদের আখড়া সেটা কি পুলিশ জানে না? আগে থেকে পুলিশ যদি সক্রিয় হত তাহলে এই ধরণের ঘটনা এড়ানো যেত৷’’

স্থানীয় বালিন্দারা বলছেন, গুলি বোমা পড়াটা ভাটপাড়ার নিত্যদিনের ঘটনা হয়ে উঠেছে৷ প্রতিটি ঘটনার পর পুলিশ আসে৷ তদন্ত শুরু হয়৷ তবে দুষ্কৃতী-রাজ সেই অর্থে ঠেকানো যায় না৷ বস্তুত, এবারেও ঘটনা ঘটার পর ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছান পুলিশের শীর্ষ কর্তারা৷ ঘটনাস্থলে আসেন ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের ডিসি নর্থ শ্রীহরি পান্ডে। তিনি এসে ঘটনাস্থলে ভাল করে খতিয়ে দেখেন। এলাকার মানুষদের সঙ্গে কথা বলেন। তবে তদন্তের স্বার্থে তিনি সংবাদ মাধ্যমের সামনে কিছু বলতে চাননি।

আরও পড়ুন: বিধায়কের ঘনিষ্ঠ হয়ে উঠেছিলেন, তাই কি খুন, উত্তর খুঁজছে অনুগামীরা