ইচ্ছের বিরুদ্ধে গোপনাঙ্গে হাত, ঠোঁটে চুমু খেয়েও জামিন, আদালতের রায়ে চাঞ্চল্য

0
306

মুম্বই: অনলাইন গেম রিচার্জের দৌলতে কিশোরের সঙ্গে পরিচয়৷ সেই সূত্রেই বছর চোদ্দোর কিশোরের গোপনাঙ্গে হাত দিতেন অভিযুক্ত৷ একাধিকবার তাঁকে জড়িয়ে ঠোঁটে ঠোঁট লাগিয়ে চুমুও খেয়েছেন তিনি৷ বিষয়টি জানতে পাারার পরে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে থানার দ্বারস্থ হয়েছিলেন কিশোরের বাবা৷ পকসো আইনে রুজু হয়েছিল মামলা৷ গ্রেফতারের পর প্রায় এক বছর অতিক্রান্ত৷ অবশেষে আদালতের নির্দেশে জামিন পেয়েছেন অভিযুক্ত৷

বিচারকের পর্যবেক্ষণ, কিশোরের গোপনাঙ্গে হাত, ঠোঁটে চুমু ‘অস্বাভাবিক যৌনতা’ নয়৷ সেকারণেই এই জামিনের নির্দেশ৷ ইতিমধ্যে আদালতের এই নির্দেশ ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে৷ প্রশ্ন তোলা হচ্ছে বিভিন্ন মহলের তরফে৷ তাঁদের মতে, এর ফলে যৌন নিগ্রহের সংখ্যা বেড়ে যেতে পারে কি না, সেটাও ভেবে দেখার সময় এসেছে৷ যদিও রায় দিতে গিয়ে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারার কথা উল্লেখ করে বিচারক জানিয়ে দিয়েছেন, এই ঘটনাকে ‘অস্বাভাবিক যৌনতা’র অপরাধের পর্যায়ে ফেলা যায় না। ঘটনাটি মুম্বই হাইকোর্টের৷

আদালত সূত্রের খবর, মুম্বইয়ের এক ‘ওলা পার্টি’র দোকানি অনলাইন গেম রিচার্জের নামে দীর্ঘদিন ধরে ওই কিশোরকে যৌন হেনস্থা করছিলেন বলে অভিযোগ৷ বিষয়টি জানতে পারার পর এই বিষয়ে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করেন কিশোরের বাবা৷ তারই ভিত্তিতে অভিযুক্তকে গ্রেফতারও করে পুলিশ৷ তবে প্রায় এক বছর অভিযুক্ত জেল হাজতে থাকলেও মামলার বিচার শুরু হয়নি৷

ওই মামলাতেই মুম্বই হাই কোর্টের বিচারপতি অনুজা প্রভুদেশাই তাঁর পর্যবেক্ষণে জানান, নিগৃহীত কিশোরের মেডিক্যালে টেস্টে শারীরিক নিগ্রহের কোনও তথ্য স্পষ্ট নয়৷ তাছাড়া ওই ব্যক্তি টানা এক বছর জেলে রয়েছেন৷ তাই এক্ষেত্রে তার জামিন মঞ্জুর করা হয়েছে৷ যদিও আইনজীবীদের একাংশের মতে, পকসো আইনে কারও বিরুদ্ধে মামলা রুজু হলে সেই মামলায় সহজে জামিন মেলে না৷ তবু স্পর্শকাতর এমন বিষয়ে কিভাবে বিচারক জামিন মঞ্জুর করলেন এবং তার ফলে আগামীদিনে যৌন নিগ্রহের প্রবণতা আরও বাড়বে কি না তা নিয়েও শুরু হয়েছে চর্চ্চা৷

আরও পড়ুন: শুভেন্দুর বাড়িতে জেলা পুলিশের তল্লাশি, টুইটারে ক্ষোভ রাজ্যপালের