কোহলিদের ক্ষোভই বলে দিচ্ছে কতটা চাপে ভারত, ডিআরএস প্রসঙ্গে বিস্ফোরক এনগিডি

0
66

খাস খবর ডেস্ক: বলতে গেলে একা ডীন এলগার-ই সিরিজে সমতায় ফিরিয়েছেন দলকে। তাই বৃহস্পতিবার টেস্টের চতুর্থ ইনিংসে যত তাড়াতাড়ি এলগারকে ফিরিয়ে দেওয়াই লক্ষ্য ছিল ভারতের। কিন্তু ডিআরএসের বদান্যতায় আশ্চর্যভাবে বেঁচে যান এলগার।

আরও পড়ুন: দ্রাবিড়ের জমানাতেই সম্ভবত শেষ টেস্ট খেলে ফেললেন দুই মানসপুত্র

অশ্বিনের বল লাইনে পড়েছিল। লাইনেই সেটি এলগারের প্যাডে আঘাত করে। কিন্তু এরপরই দেখা যায়, বল উইকেটের ওপর দিয়ে বেরিয়ে যাচ্ছে। বলটির বাউন্সের নিরিখে যা ছিল অসম্ভব। খোদ আম্পায়ার ইরাসমাসকে পর্যন্ত বলতে শোনা যায়, “Impossible!” আর ভারতীয়রা তো ক্ষোভই সামলাতে পারেননি। বিশেষ করে কে এল রাহুল, বিরাট কোহলি এবং রবি অশ্বিন ফেটে পড়েন রীতিমত।

ভারতীয়দের এই ক্ষোভকে রীতিমত কটাক্ষই করলেন প্রোটিয়া স্পিডস্টার লুঙ্গি এনগিডি। তাঁর কথায়, এই ঘটনায় এটাই প্রমাণিত হয় যে চাপের মুখে কোহলিরা কতখানি হতাশ। কেপটাউনে তৃতীয় দিনের শেষে ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে এসে এনগিডি বলেন, “এ ধরণের প্রতিক্রিয়া আর কিছুই নয়, হতাশার ছবি ফুটিয়ে তোলে। আপনি কখনওই মাঠে এই হতাশ দেখাতে চাইবেন না। কিন্তু ভারত এই টেস্টে যথেষ্ট চাপে রয়েছে। ওদের এই প্রতিক্রিয়ায় তার হতাশাই ফুটে উঠেছে।”

আরও পড়ুন: ওভারসিজ সিরিজের শেষ টেস্ট এলেই জ্বলে ওঠেন ঋষভ পন্থ, চমকে দিচ্ছে পরিসংখ্যান

দক্ষিণ আফ্রিকার অন্যতম স্ট্রাইক বোলার আরও বলেন, “এলগার আর পিটারসেনের পার্টনারশিপ ম্যাচের নিরিখে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল আমাদের জন্য। ভারত তাই জুটিটা ভাঙতে মরিয়া ছিল।” ডিআরএস প্রসঙ্গে বলেন, “হ্যাঁ আমরা ভরসা করি এই সিস্টেমকে। সারা বিশ্বে একাধিক খেলায় এই সিস্টেম প্রতিনিয়ত ব্যবহৃত হয়ে চলেছে।”