বালির ভাস্কর্যের মতই ক্ষণস্থায়ী এই জীবন, এবারে পুরীর সৈকতে অ্যান্ড্রু সাইমন্ডস

0
46

পুরী: জীবন আর বালির ভাস্কর্যে আসলে কোনও প্রভেদ নেই। উভয়েই এই আছে তো এই নেই। প্রাক্তন অজি ক্রিকেটার অ্যান্ড্রু সাইমন্ডসের মৃত্যুর পর এই ভাবনাই যেন ফুটিয়ে তোলা হল জগন্নাথ ধাম পুরীর সমুদ্র সৈকতে। শিল্পী সুদর্শন পট্টনায়েক।

আরও পড়ুন: থমাস কাপ জয় ৮৩ বিশ্বকাপ জয়ের থেকেও বড় সাফল্য, সাফ দাবি কিংবদন্তির

- Advertisement -

খাস খবর ফেসবুক পেজের লিঙ্ক:
https://www.facebook.com/khaskhobor2020/

সুদর্শন পট্টনায়েকের পরিচয় নতুন করে দেওয়ার দরকার পড়ে না। তাঁর কাজের সঙ্গে পরিচিত নন, এমন মানুষ ভারতবর্ষ— বিশেষ করে এই পূর্বাঞ্চলে খুব কমই রয়েছেন। যে কোনও উল্লেখযোগ্য ঘটনা বা কীর্তিমান ব্যক্তিত্বকেই বালির বুকে নিজের হাতের জাদুতে ফুটিয়ে তোলেন এই শিল্পী। এভাবেই সাইমন্ডসকে-ও এবারে তিনি ফুটিয়ে তুলেছেন।

সাইমন্ডসের এই বালির ভাস্কর্যের সঙ্গে লেখা হয়, “অ্যান্ড্রু সাইমন্ডসকে শ্রদ্ধাঞ্জলী। আমরা আপনাকে মিস করব।” এছাড়া এই ভাস্কর্যের ছবি দিয়ে টুইটারে একটি পোস্ট-ও করেছেন সুদর্শন পট্টনায়েক। সেখানে লেখেন, “একটি মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় অ্যান্ড্রু সাইমন্ডসের মৃত্যু ঘটেছে জেনে আমি দুঃখিত। বিশ্ব ক্রিকেটের জন্য এটি একটি বিরাট ক্ষতি। আমরা যে তাঁকে মিস করব, সেই বার্তা জানাতে পুরীর সমুদ্র সৈকতে আমার একটি স্যান্ড আর্ট।”

সত্যিই জীবন কতই না ক্ষণস্থায়ী! ঠিক এই বালির ভাস্কর্যের মতই। সমুদ্রের একটি ঢেউই যথেষ্ট এই ভাস্কর্যকে চিরতরে মুছে ফেলতে। ঠিক তেমনই মাত্র একটি মুহূর্তেই শেষ হয়ে যেতে পারে কোনও মানুষের জীবন। অ্যান্ড্রু সাইমন্ডসের মৃত্যু যেন আরও একবার চোখে আঙুল দিয়ে তা দেখিয়ে দিল।