31 C
Kolkata
Sunday, August 1, 2021
Home Breaking News ঘুরপথে স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ডের টাকা অস্ত্র কারবারীদের হাতে যাচ্ছে না তো

ঘুরপথে স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ডের টাকা অস্ত্র কারবারীদের হাতে যাচ্ছে না তো

গৌর বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের জাল মার্কশিট কাণ্ডে প্রশ্ন তুলেছেন অধ্যাপকদের একাংশৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃৃ

কলকাতা: অনিল মণ্ডল, জামিলা বসাক, আব্দুল মিঞা, তুফান বসাক, কমলা মণ্ডল৷ গৌড় বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০১৯ সালে তৃতীয় বর্ষের মার্কশিট পেয়েছেন এঁরা৷ ২০১৯ সালের ২৩ মে প্রকাশিত মার্কশিটে গৌড় বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের কন্ট্রোলার অফ এক্সামিনেশন হিসেবে স্বাক্ষর রয়েছে সনাতন দাসের৷ ঘটনাচক্রে সনাতনবাবু তখন কন্ট্রোলার অফ এক্সামিনেশন পদে ছিলেন না অর্থাৎ মার্কশিটগুলি জাল!

- Advertisement -

আরও পড়ুন: খাস খবরের জের: মানসিক ভারসাম্যহীনের পাশে মানবিক পুলিশ

এই তথ্যকে সামনে রেখেই শিক্ষক এবং পডুয়াদের একাংশ বলছেন, শিক্ষার প্রসারে স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড চালু করেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ মাস ফুরোলে পড়াশোনার খরচ বাবদ মিলছে মোটা অঙ্কের ভাতাও৷ কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের স্ট্যাম্প মারা মার্কশিটটাই যদি ভুয়ো হয় সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ছাত্র বা ছাত্রী যে ভুয়ো সেবিষয়ে তো কোনও সন্দেহ থাকার কথা নয়৷ স্বাভাবিকভাবেই ওই মহলের প্রশ্ন, জাল মার্কশিট দেখিয়ে বেনামি স্টুডেন্টদের মাধ্যমে টাকাটা কারা হাতিয়ে নিচ্ছেন, তার খোঁজ কিভাবে নেওয়া সম্ভব?

- Advertisement -

আরও পড়ুন: অধিবেশনের শুরুতেই সংসদে কেন কোনঠাসা হতে হল মোদীকে

ঘুরপথে ওই টাকা অস্ত্র কারবারীদের হাতে পৌঁছে যাচ্ছে না তো? উঠছে এমনই চাঞ্চল্যকর প্রশ্ন৷ পড়ুয়ারাও ক্ষোভের সুরেই বলছেন, ‘‘এখানে পড়ে কেরিয়ারের বদনাম হয়েছে৷ গৌর বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্টিফিকেট দেখলেই অন্যরা সন্দেহের চোখে দেখেন৷ কারণ, সারা রাজ্যে একমাত্র আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধেই টাকার বিনিময়ে বেশি নম্বরের জাল মার্কশিট বানিয়ে দেওয়ার বদনাম রয়েছে!’’

আরও পড়ুন:  লাভের গুড় খেলো করোনা, মাথায় হাত আনারস চাষিদের

- Advertisement -

বিশ্ববিদ্যালয়ের নথি অনুযায়ী, ২০১৯ সালের জুন জুলাই নাগাদ তৎকালীন উন্নয়ন আধিকারিক রাজীব পুতিতুন্ডি দেখলেন স্কলারশিপের জন্য ছাত্রদের জমা দেওয়া মার্কশিটের মধ্যে একাধিক মার্কশিটে গরমিল রয়েছে৷ অথচ ওই মার্কশিটের ভিত্তিতেই মিলবে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড অর্থাৎ সরকারি অনুদান পৌঁছে যাবে সরাসরি স্টুডেন্টসদের অ্যাকাউন্টে৷ সেখান থেকেই উঠছে, সরকারি টাকা বেহাত হওয়ার প্রশ্ন৷

জাল মার্কশিট সহ একাধিক বেনিয়মের নাম জড়িয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ভারপ্রাপ্ত কন্ট্রোলার সনাতন দাসের৷ তাঁর বিরুদ্ধে ২০২০ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের তদন্ত কমিটির তরফে তৎকালীন রেজিস্টার বিপ্লব গিরিকে এফআইআর জারি করার সুপারিশ করা হয়৷ কিন্তু কোনও এক অজ্ঞাত কারণে দু’জনেই তৃণমূল প্রভাবিত ওয়েস্ট বেঙ্গল কলেজ অ্যান্ড ইউনিভার্সিটি প্রফেসর অ্যাসোসিয়েশনের (ওয়েবকুপার)র মালদহ জেলার দায়িত্বে থাকায় সনাতনবাবুর বিরুদ্ধে কোনও এফআইআর করেননি বিপ্লববাবু৷

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রের খবর, করোনার প্রথম দফার ধাক্কায় লকডাউন পর্বের জেরে সেসময় তদন্তের গতি থমকে গিয়েছিল৷ কিন্তু এবিষয়ে অভিযুক্ত সনাতন দাসের বিরুদ্ধে রাজ্যের উচ্চ শিক্ষা দফতরে একাধিক অভিযোগ জমা পড়ায় তাঁরা স্বত:স্ফূর্তভাবে তদন্ত শুরু করে৷ তদন্তে নেমে তাঁরা দেখেন- অভিযুক্ত সনাতন দাসের বিরুদ্ধে খোদ সরকারের কাছেই রয়েছে একাধিক নথি৷ তাহলে সেই নথি রেজিস্টার বিপ্লব গিরি দেখতে পেলেন না কেন? এই প্রশ্ন তুলেই অভিযুক্তের সঙ্গে বিপ্লব গিরির ‘অবৈধ লেনদেনের সম্পর্কে’র অভিযোগ নিজেদের রিপোর্টে উল্লেখ করেছে স্বয়ং উচ্চ শিক্ষা দফতরের তদন্ত কমিটির সদস্যরা৷ কমিটির সুপারিশ মেনে ইতিমধ্যে রেজিস্টার পদ থেকে সরিয়েও দেওয়া হয়েছে বিপ্লববাবুকে৷ তাঁর বিরুদ্ধে ‘তথ্য চেপে যাওয়ার’ অভিযোগ উঠেছে৷

স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেখানে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব সেখানে বেনিয়মে অভিযুক্ত দুই অধ্যাপককে কেন সংগঠনের শীর্ষ পদে রাখা হয়েছে৷ এখানেই ওয়েবকুপার চেয়ারম্যান কৃষ্ণকলি বসুর সঙ্গে তাঁদের ‘অশুভ আঁতাতের’ অভিযোগও সামনে আসছে৷ অভিযোগ, একই সংগঠনের সদস্য হওয়ায় ‘সচেতনভাবে’ই তাঁদের আড়াল করছেন স্বয়ং কৃষ্ণকলিদেবী৷ আর এক্ষেত্রে কৃষ্ণকলিদেবীর ‘হাত’ এতটাই লম্বা যে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব থেকে মন্ত্রীরাও সব জেনেও কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করার ‘সাহস’ দেখাতে পারছেন না৷

যদিও কৃষ্ণকলিদেবীর দাবি, ‘‘উচ্চশিক্ষা দফতর যেকোনও বিষয়ে তদন্ত করতেই পারে৷ ওরা রেকমেন্ডও করতে পারেন৷ কিন্তু নিজেদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে শেষ কথা ইউনির্ভাসিটি৷ তাঁরা মনে করলে ওই রেকমেন্ড গ্রহণ করতে পারেন আবার নাও করতে পারেন৷’’ উচ্চ শিক্ষা দফতরের তথ্য অবশ্য অন্য কথা বলছে৷ ২০১৭ সালের ২২ মার্চ সরকারের তরফে প্রকাশিত গেজেটের সিরিয়ল নম্বর ১৮ তে বলা হয়েছে- ‘উচ্চশিক্ষা দফতরের নির্দেশ পালন করতে বাধ্য থাকবে কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়গুলি৷’ তারপরেও ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না কেন? এই প্রশ্ন তুলে একাংশ অধ্যাপকদের অভিমত, সর্ষের মধ্যেই ভূত থাকলে ভূত তাড়ানোর সাধ্যি কার আছে?

- Advertisement -

সপ্তাহের সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ

বাইক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত নিক, প্রিয়াঙ্কা পাড়ি দিলেন আমেরিকায়

মুম্বই: বলি অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া এবং হলিউড পপ তারকা নিক জোনাসের প্রেম পর্বের খবর প্রায়শই পেজ থ্রির শিরোনামে থাকে। কেবলমাত্র বি-টাউনই নয় হলিউডেও বেশ...

কপিলের শো থেকে বাদ পড়ায় মনের ব্যথা প্রকাশ ‘কর্মহীন’ সুমনার

মুম্বই: শিশুশিল্পী হিসেবে প্রথম অভিনয় জগতে পা রাখেন অভিনেত্রী সুমনা চক্রবর্তী। তিনি প্রথম স্ক্রিন শেয়ার করেছেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা আমির খানের সঙ্গে। তখন সেই...

এক্সক্লুসিভ: প্রয়াণ দিবসে মহানায়কের নাতবৌ অভিনেত্রী দেবলীনা কুমারের ‘উত্তম-কথা’

পূর্বাশা দাস: তিনি শুধু নায়ক নন, তিনি মহানায়ক। আপামর বাঙালির কাছে উত্তম কুমার মানে আবেগ। মৃত্যুর এক চল্লিশ বছর পরেও সকলের মনের মনিকোঠায় রয়েছেন...

শীঘ্রই নতুন চরিত্রে পর্দায় আসবেন দেশের মাটির ‘উজ্জয়িনী’ পায়েল দে

পূর্বাশা দাস: ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী পায়েল দে। কখনও তিনি বেহুলা আবার কখনও সতী।পৌরাণিক বা অন্যান্য যেকোনও চরিত্রই তাঁর অভিনয়ের গুণে পর্দায় জীবন্ত হয়ে ওঠে। আরও...

খবর এই মুহূর্তে

সতর্ক সেনা, কয়েক ঘণ্টার মধ্যে কাশ্মীরে তিনবার মিলল ড্রোনের দেখা

শ্রীনগর: ২৭ জুন জম্মুর বায়ু সেনার ঘাঁটির কাছে দুটি ড্রোন হামলা চালানোর পর থেকেই কাশ্মীরে বেড়েছে ড্রোন (Drone) সাদৃশ্য বস্তুর হানা। মাঝে মধ্যেই উপত্যকার...

১০ শতাংশের বেশি কেস থাকলে রাজ্যের জেলায় কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ দরকার: কেন্দ্র

নয়াদিল্লি: বিশেষজ্ঞরা আগেই জানিয়েছেন যে ভারতে করোনার তৃতীয় ধেউ অনিবারজ। কয়েক দিনের করোনার সংক্রমণের গ্রাফ নতুন করে চিন্তা বাড়াচ্ছে। ভারতে এসে গিয়েছে করোনার তৃতীয়...

সুখী যৌনমিলনের মাপকাঠি শীৎকার সহ অর্গ্যাসম, দাবি স্বয়ং বিজ্ঞানীদের

খাস খবর ডেস্ক: ধীরে ধীরে একে অপরের কাছে এগিয়ে আসছে দু'টি মানুষ। একে অপরের প্রতি সম্পূর্ণ সমর্পিত দু'টি প্রাণ। প্রকৃতির নিয়মে মিলল তারা। দু'জনের...

বিদেশি খেলনার মাধ্যমে আকাশপথে কলকাতায় ঢুকছিল উন্নত প্রজাতির মাদক

পলাশ নস্কর, কলকাতা: আকাশ পথে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে পোড়া বাংলার মাটিতে আসছিল উন্নত প্রজাতির মাদক৷ মাধ্যম, নিরীহ খেলনা৷ এভাবেই দিনের পর দিন বিমান বন্দরের...