দুর্গদ্ধ এলাকায়, ছেলের পচা-গলা দেহ আগলে মা

0
169

দুর্গাপুর: কথাতেই আছে ‘মা’-এর সঙ্গে সন্তানের নারীর টান রয়েছে৷ তাই সন্তানের কোনো রোগ ব্যধি হলেই আগে মা-এর মন কেঁদে ওঠে৷ সেখানে তো সন্তানের মৃত্যু৷ সেই শোক নিতে পারেননি মা৷ ছেলের মৃতদেহ আগলে বসে রইলেন তিনি৷ ফের কলকাতার রবিনসন স্ট্রিটের ছায়া এবার দুর্গাপুরে৷

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দুর্গাপুর স্টিল টাউনশিপের সেকেন্ডারি রোডের দুর্গাপুর ইস্পাত কারখানার একটি আবাসনে ছিল মা-ছেলের সংসার৷ বৃদ্ধা মা-এর বয়স ৮০৷ তাঁর সঙ্গেই থাকতেন ছেলে সুশীল জানা (৪০)৷ সুশীল ও তাঁর মা দুজনেই ছিলেন ভারসাম্যহীন৷ সম্প্রতি তিনি একটি দোকানে কাজ করতেন৷

সুশীলের ভাইঝি শ্রেয়সী জানার কথায়, গত চারদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন সুশীল৷ তখন শ্রেয়সীর থেকে চিকিৎসার জন্য টাকা চেয়েছিলেন বৃদ্ধা৷ এরপর তিন দিন আগে সুশীলকে শেষবারের মতো দেখছেন শ্রেয়সী৷ এমনটাই তিনি জানান৷ এরপর সোমবার সকাল থেকে এলাকায় দুর্গদ্ধ বের হতে থাকে৷

প্রতিবেশী ওই বৃদ্ধার বাড়িতে যান৷ সেখানে গিয়েই চক্ষু চরকগাছ ওই প্রতিবেশীর৷ তিনি দেখেন, সুশীলের পচা-গলা দেহ খাটে পড়ে আছে৷ তাঁকে আগলে বসে আছেন বৃদ্ধা মা৷ এই খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়তেই দুর্গাপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে৷ ঘটনাস্থলে যান ওই ওয়ার্ডের প্রাক্তন কাউন্সিলর পল্লবরঞ্জন নাগ৷

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে৷ কবে কীভাবে মৃত্যু হয়েছে তা এখনও জানা যায়নি৷