আমাদের কিছু নেতার পদস্থালন হয়েছে: চন্দ্রনাথ সিনহা

0
200

বোলপুর:এসএসসি নিয়োগ কেলেঙ্কারির জেরে কোনঠাসা শাসক৷ সিবিআইয়ের জেরার মুখে রাজ্যের দুই মন্ত্রী৷ এহেন পরিস্থিতিতে দলের একাংশ নেতা যে দুর্নীতি পরায়ণ, তা অকপটে স্বীকার করে নিলেন রাজ্যের দাপুটে তৃণমূল নেতা তথা মন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিনহা৷ এদিন ইলামবাজারে তৃণমূলের তরফে একটি কর্মী সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছিল। সেই সম্মেলন শেষে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয় রাজ্যের দাপুটে মন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিনহা বলেন, ‘‘আমাদের কিছু নেতার পদস্থালন হয়েছে৷ এটা তো আমরা অস্বীকার করিনি৷ তবে সঙ্গে পদক্ষেপও নেওয়া হচ্ছে৷’’

এরপরই টেনে এনেছেন বিজেপির প্রসঙ্গ, ‘‘আরে দুর্নীতি ওরা করেনি? এই তো কল্যাণীর এইমসে দু’জন ওদের এমএলএর আত্মীয় চাকরি পেল কি করে? বিজেপি কি দিল্লিতে দুর্নীতি করেনি? বিজেপি তো সবচেয়ে বড় চোর৷ ওরা আবার কি করে বড় বড় কথা বলে৷’’ সেই প্রসঙ্গেই নিজেদের দলের অবস্থান বোঝাতে গিয়ে চন্দ্রনাথ বলেন, ‘‘আমাদের দু, একজন নেতা চুরি করছে৷ মুখ্যমন্ত্রী সঙ্গে সঙ্গে স্টেপ নিচ্ছে৷ গ্রেফতার হচ্ছে৷ আর বিজেপি? নিজেরা চুরি করে অন্যদের চোর বলছে৷ এটা ঠিক নয়৷ বিজেপি দলটা রাজনীতির শিষ্টাচার মানে না৷’’

স্বাভাবিকভাবে চন্দ্রনাথের বক্তব্য ঘিরে জোর চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে৷ রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, তৃণমূলের নেতারা চোর সেটা কার্যত এক বাক্যে স্বীকার করে নিলেন খোদ রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিংহ। যার জেরে এসএসসি নিয়োগ কেলেঙ্কারিতে শাসকদলের চাপ আরও বাড়ল বলেই মনে করা হচ্ছে৷ যদিও চন্দ্রনাথের ঘনিষ্ঠজনেরা বলছেন, দাদা দলের কারও বিরুদ্ধে কোনও কথা বলতে চাননি৷ উনি বোঝাতে চেয়েছেন, বিজেপি কত বড় চোর সেটা৷ ওই কথা বলতে গিয়ে যদি দলের কোনও গাফিলতির কথা স্বীকারও করে থাকেন তাহলে সেটার প্রশংসা করা উচিত৷ কিন্তু তার অপব্যাখ্যা করা হচ্ছে৷

আরও পড়ুন: খতম তৃণমূল, ২৪ এ নবান্নে উড়বে গেরুয়া পতাকা: Suvendu Adhikari