তৃণমূলে ফের অবসরের সুর, একইসঙ্গে জল্পনা বাড়ালেন রাজ্যের মন্ত্রী ও বিধায়ক

0
52
TMC

কলকাতা: গত কয়েকমাসে দুর্নীতিকাণ্ডের জেরে ব্যাপক অস্বস্তিতে তৃণমূল কংগ্রেস। এরইমাঝে দলের কয়েকজন হেভিওয়েট অবসরের ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন। তাঁদের মধ্যে রয়েছেন মদন মিত্র, তাপস রায়। এবার দলের অস্বস্তি খানিকটা বাড়িয়ে রাজ্যের এক মন্ত্রী এবং তৃণমূলের এক বিধায়ক অবসরের জল্পনা উস্কে দিলেন।

আরও পড়ুন:২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিহারে কটা আসন জিতবে বিজেপি, লক্ষ্য নির্ধারণ করল শীর্ষ নেতৃত্ব

- Advertisement -

এদিন হাওড়ার উদনারায়ণপুরের তৃণমূল বিধায়ক সমীর পাঁজা ফেসবুক পোস্টে মুখ্যমন্ত্রীর ছবি সহ লেখেন, ‘হ্যাঁ আমার এই মহান নেত্রী টা আছে বলেই , আমি আজও তৃণমূল দল ছেড়ে যাইনি। কারণ কত ঝড় ঝাপটা পেরিয়ে, নানান ইতিহাস এর সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে থেকে ৩৮ টা বছর মহান নেত্রীর সঙ্গে একজন সৈনিক হিসেবে কাজ করতে করতে, এখন বড়ই বেমানান লাগছে নিজেকে। কারণ আজ অবধি মিথ্যা নাটক করে দলীয় নেতৃত্বের কাছে ভালো সেজে, একটা মেকি লিডার হতে চাইনা আমি। নাহলে কবেই টা টা বাই বাই করে দল ছেড়ে চলে যেতাম আমি। আমার মতো অবিভক্ত যুব কংগ্রেসের আমল থেকে যারা আছে , তারা আদৌ কোনও গুরুত্ব পাচ্ছে কি বর্তমানে…..?? তাই আর কি, আমার যাবার সময় হল, দাও বিদায়!’ তাঁর এই পোস্টে হতাশার ছাপ স্পষ্ট এ কথা বলাই বাহুল্য।

অন্যদিকে, রাজ্যের মন্ত্রী অরূপ রায়ও একই সুরে সুর মেলান। তিনি সমীর পাঁজার প্রসঙ্গে হতাশা ব্যক্ত করে বলেন, ‘আমারও একই অবস্থা। আমার নেতৃত্বে দল ক্ষমতায় এসেছে। যতদিন মনে করব দলে থাকব যেদিন মনে হবে সরে যাবো।

উল্লেখ্য, এর আগে তৃণমূলের বিধায়ক তাপস রায় অবসরের জল্পনা বাড়িয়ে বলেছিলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে মনে করি রাজনীতিতে একটি নির্দিষ্ট সময়ের পর আর থাকা উচিত নয়। সঠিক সময় এলে দলকে অবসরের কথা জানিয়ে দেব।’ এরপর একই প্রসঙ্গ বলতে শোনা গিয়েছিল রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা কামারহাটির তৃণমূল বিধায়ক মদন মিত্রকেও। তিনি একটি সভায় বলেছিলেন, ‘গাওয়াস্কার যদি ছটা ছয় মেরে দেওয়ার পর মনে না করত আমার ছেড়ে দেওয়া উচিত তাহলে বিরাট কোহলি জন্ম নিত না। শচিন তেণ্ডুলকর যদি না ছাড়তেন তাহলে নতুন প্রজন্ম তৈরি হত না।’ যদিও এ নিয়ে দলের নেতৃত্ব কোনও মন্তব্য করেনি।