ফের কলকাতা থেকে গ্রেফতার ভুয়ো সিবিআই অফিসার, প্রতারিত আইনজীবী দম্পতি

0
20

কলকাতা: গোপন সূত্রের খবর পেয়ে রবিবার রাতে নোয়াপাড়া থেকে এক ভুয়ো সিবিআই অফিসারকে গ্রেফতার করল পুলিশ৷ ধৃতের নাম কৃষানু মণ্ডল৷ ধৃতকে আজ ব্যারাকপুর মহকুমা আদালতে পাঠানো হয়েছে৷ তদন্তের স্বার্থে পুলিশের পক্ষ থেকে দশ দিনের পুলিশি হেফাজতের আবেদন জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:  মমতার হাত ধরতে আপত্তি নেই দিশেহারা বামেদের, ইঙ্গিত দিলেন বিমান বসু

অভিযোগ, নিজেকে সিবিআইয়ের পদস্থ আধিকারিক হিসেবে পরিচয় দিয়ে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার ইন্সপেক্টর পদে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নাম করে এক আইনজীবী দম্পতির কাছ থেকে ২৪ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয় সে। বরানগরের শরৎচন্দ্র রোডের বাসিন্দা ওই আইনজীবী দম্পতি রবিবার বরানগর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। তারপরই তদন্তে নেমে পুলিশ অভিযুক্তকে পাকড়াও করে৷

আরও পড়ুন: মমতার দাবিকে ‘মান্যতা’ দিয়ে সিপিএমের দলীয় অনুষ্ঠানে শুভেন্দুর ভাই দিব্যেন্দু

পুলিশ সূত্রের খবর, ২০১৬ সালে একটি জমি রেজিস্ট্রেশন সংক্রান্ত বিষয়ে শিয়ালদা কোর্টের আইনজীবী বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের কাছে যান কৃশানু৷ সেই সূত্রেই অভিযুক্তের সঙ্গে বিশ্বজিতবাবুর সম্পর্ক গভীর হয়৷ বিশ্বজিৎ বাবুর বরানগরের এ কে মুখার্জি রোডের বাড়িতে কৃশানু আসা-যাওয়া করতে শুরু করে৷ সেই সুযোগেই বিশ্বজিৎবাবু এবং তাঁর স্ত্রী ইন্দিরাদেবীর সঙ্গে পারিবারিক সম্পর্ক তৈরি হয় অভিযুক্ত কৃশানুর।

অভিযোগ, সে নিজেকে সিবিআই অফিসার পরিচয় দিয়ে বরানগর ৪১ শরৎ ধর রোডের ওই আইনজীবী দম্পতিকে সিবিআই অফিসে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার নাম করে দফায় দফায় প্রায় ৪-লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়৷ কিন্তু চাকরি না পেয়ে ওই দম্পতি বুঝতে পারেন তাঁরা প্রতারণার শিকার হয়েছেন৷ আইনজীবী দম্পতির সন্দেহ হয়৷ এরপরই তাঁরা পুলিশের দ্বারস্থ হন৷ প্রশ্ন উঠছে, ঘুষ নেওয়াটা যেমন অপরাধ তেমনই ঘুষ দেওয়াটাও তো অপরাধ৷ তা হলে কি অভিযোগকারী দম্পতির বিরুদ্ধেই পদক্ষেপ গ্রহণ করবে পুলিশ? পুলিশ অবশ্য জানিয়েছে, তদন্তে সবদিকই খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷